উপকূলের প্রায় ৫ কোটি মানুষ মারাত্মক ঝুঁকির মুখে

  • সম্পাদকীয়
  • ৩৮১

img_0549.jpgসরকারি সংস্থার অধীনে পরিচালিত প্রকল্প ‘ইন্টিগ্রেটেড কোস্টাল জোন ম্যানেজমেন্ট (আইসিজেডএম)’ ১৯টি জেলাকে উপকূলের আওতাভূক্ত বলে চিহ্নিত করেছে। জেলাগুলো হচ্ছে বাগেরহাট, বরগুনা, বরিশাল, ভোলা, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ফেনী, গোপালগঞ্জ, যশোর, ঝালকাঠি, খুলনা, লক্ষীপুর, নড়াইল, নোয়াখালী, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, সাতক্ষীরা, শরীয়তপুর। জেলাগুলোতে সংসদীয় আসনের সংখ্যা ৮৭টি। ২০০১ সালের আদমশুমারি অনুসারে উপকূলভূক্ত এই এলাকায় লোকসংখ্যা ৩ কোটি ৫০ লাখ ৭৮ হাজার ৫০০ জন। তবে এখন এই সংখ্যা প্রায় ৫ কোটি। এই ১৯ জেলার মধ্যে উপকূল অঞ্চল ‘এক্সপোজড’ ও ‘ইন্টেরিয়র’ এই দু’ভাগে বিভক্ত। এক্সপোজড জোনে ১২ জেলার ৪৮টি উপজেলা/থানা রয়েছে। অন্যদিকে ইন্টেরিয়ার জোনে ৯৯টি উপজেলা/থানা রয়েছে। কিন্তু কাজের সুবিধার্থে আইসিজিডএমপি চিহ্নিত এক্সপোজড আর ইন্টেরিয়র দুই জোনের সমন্বয়ে ৯৪টি উপজেলা আর ৫৬টি সংসদীয় আসন নিয়ে ‘উপকূল রিপোর্টিংয়ের’ আরেকটি ক্ষেত্র নির্ধারণ করেছে।এই ১৯ জেলায় ১৩০টি উপজেলা আরও ৮৭টি সংসদীয় আসন রয়েছে। তবে তথ্যপ্রবাহ নিশ্চিকরণের কাজটি আরও নিবিরভাবে করার লক্ষ্যে এই জেলাগুলোর মধ্যে ১২টি পূর্নাঙ্গ জেলা ও ৩টি আংশিক জেলাকে উপকূল প্রভাবিত এলাকা হিসাবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এই হিসাবে উপকূলের আওতায় থাকছে ৯৪টি উপজেলা আর ৫৬টি সংসদীয় আসন।

দেশের অন্য এলাকার তুলনায় উপকূলীয় অঞ্চলের জনসাধারণের মাথাপিছু ভূমির প্রাপ্যতা কম। ১৯৯৬ সালের কৃষি জরিপে দেয়া যায় , উপকূলীয় অঞ্চলের শতকরা ৫৪ ভাগ পরিবার হচ্ছে কার্যকরভাবে ভূমিহীন। এদের মাথাপিছু ভূমি ৫০ শতাংশেরও কম। এইসব পরিবারের মালিকানায় আছে মাত্র ১৭ ভাগ ভূমি। আবার মাত্র শতকরা ১২ ভাগ পরিবারের মালিকানায় রয়েছে প্রায় ৪৭ ভাগ ভূমি। ক্রমাগত জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে মাথাপিছু ভূমির পরিমাণ আরও কমবে। জীবিকার প্রয়োজনে বহু মানুষ ছুটবে শহরের দিকে। দেশের গোটা উপকূলীয় অঞ্চল জুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। উপকূলের ১৯ জেলার প্রায় ৫ কোটি মানুষ মারাত্মক ঝুঁকির মুখে রয়েছে। ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক, মৎস্যজীবী থেকে শুরু করে বিভিন্ন পেশাজীবী জনগোষ্ঠীর জীবন-জীবিকায় প্রভাব পড়ছে। বেড়েছে নানা ধরণের দুর্যোগ। প্রাকৃতিক সম্পদের ওপর নির্ভরশীল মানুষগুলো খাদ্য নিরাপত্তাহীতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য