সবুজ উপকূল ২০১৬, উপকূল সুরক্ষার অঙ্গীকার মঠবাড়িয়ার পড়ুয়ার কণ্ঠে

তাসনিম মনোয়ারুল আলম

মঠবাড়িয়া, পিরোজপুর, ২৭ আগষ্ট ২০১৬ : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কে এম লতীফ ইনস্টিটিউশনের দশম শ্রেণীর ছাত্র তাসনিম মনোয়ারুল আলমের কণ্ঠে ধ্বনিত হলো উপকূলের পরিবেশ সুরক্ষার তাগিদ। বললো আমরা সবাই মিলে সবুজে সবুজে ভরিয়ে তুলবো উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার তটরেখা। আমাদের বেঁচে থাকার জন্যেই উপকূলের সুরক্ষা অত্যন্ত জরুরি।

শনিবার (২৭ আগষ্ট) উপকূলীয় জেলা পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে কে এম লতীফ ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত ‘ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক সবুজ উপকূল ২০১৬’ কর্মসূচির অনুষ্ঠানে পড়ুয়াদের পক্ষে বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে তাসনিম এসব কথা বলেছে।

তাসনিম মনোয়ারুল আলম তার বক্তব্যে উল্লেখ করে, গোটা উপকূলে প্রায় ৮০ হাজার শিক্ষার্থীকে এ কর্মসূচির আওতায় আনা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছি আমরাও। এবছর উপকূলএলাকার ১৪টি জেলার শিক্ষার্থীদেরএ কর্মসূচির আওতায়আনা হয়েছে। আমাদের মাঝে সচেতনতা তৈরির জন্য আয়োজন করা হয়েছে রচনা, কবিতা, প্রতিবেদন লেখা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার। সেরা রচনা ও প্রতিবেদনগুলোকে স্থান দেওয়া হয়েছে দেয়াল পত্রিকা ‘বেলাভূমি’তে। আমাদের মধ্য থেকে বেলাভূমি পত্রিকার সম্পাদক ও অন্যান্য লেখক নির্বাচন করা হয়েছে। আমরা বেলাভূমি পত্রিকায় আমাদের অনুভূতি প্রকাশের সুযোগ পেয়েছি। যা আমাদের জন্য নতুন অভিজ্ঞতা।

এ কর্মসূচির মাধ্যমে আমাদের মাঝে প্রাকৃতিক বিপদসমূহ এবং এগুলো মোকাবেলার জন্য যে ধরণের পদক্ষেপ দরকার, ও যে ধরণের সচেতনতা দরকার, তার বিকাশ ঘটেছে।

এ কর্মসূচির আওতায় আমাদেরউপজেলাকে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য আমরা কর্মসূচি বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এ কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা আমাদের দেশের ৭১০ কিলোমিটার উপকূলকে রক্ষা করার এবং দেশকে সবুজে সবুজময় করার আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

//প্রতিবেদন/উপকূল বাংলাদেশ/২৭০৮২০১৬//

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য