শ্যামনগরে পড়ুয়ারা গড়ে তুলেছে পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলন

সবুজ উপকূল পরিবর্তনের গল্প, শ্যামনগর-সাতক্ষীরা

শ্যামনগর, সাতক্ষীরা: ওরা এখন নিজেদের চারপাশের পরিবেশ সুরক্ষায় অনেক সচেতন। বন্ধুরা একত্রিত হয়ে সভায় বসে। ঠিক করে কাজের বিষয়। এরপরে পরিবেশ সুরক্ষার নেমে পড়ে মাঠে। নিজেদের জ্ঞান চর্চার লক্ষ্যে গড়ে তুলেছে পাঠাগার। বাল্যবিয়ের প্রতিরোধে পদক্ষেপ নেয়। ঝড়ে পড়া শিশুদের স্কুলে ফেরানোর উদ্যোগ নেয়। নিজেদের সৃজনশীল জ্ঞান বিকাশে যুক্ত হয় নানাবিধ কাজের সঙ্গে।

এটা পশ্চিম উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরার শ্যামনগরের মুন্সীগঞ্জ আর দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার গল্প। গত দু’বছরে মুন্সিগঞ্জের সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে দু’টি এবং গাবুরার চাঁদনিমূখা মাধ্যমিক বিদ্যালয় একটি ‘সবুজ উপকূল কর্মসূচি’ অনুষ্ঠিত হয়। এতে পৃষ্ঠপোষকতা করে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। ২০১৫ সাল থেকে উপক‚ল জুড়ে এ কর্মসূচি বাস্তবায়িত হয়। সৃজনশীল প্রতিষ্ঠান উপকূল বাংলাদেশ এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে।

কর্মসূচি বাস্তবায়নের পরে এলাকায় কি ধরণের পরিবর্তন এসেছে? এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে গিয়ে পাওয়া যায় অনেক ইতিবাচক গল্প। গাবুরার চাঁদনিমূখা এম এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী (এসএসসি ফলপ্রার্থী) খান আবু হাসান বললো, ওরা সবুজ উপকূল কর্মসূচি থেকে পাওয়া ধারণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে পরিবেশ সুরক্ষার আন্দোলন গড়ে তুলেছে। নিজেদের সচেতনতার পাশাপাশি ওরা গ্রামবাসীকে সচেতন করে তুলছে।

গাবুরার সমস্যা ও সবুজ উপকূল কর্মসূচির প্রভাব প্রসঙ্গে খান আবু হাসান বলে, চারিদিকে নদী বেষ্টিত সুন্দরবনের কোলঘেঁসে অবস্থিত দ্বীপ অঞ্চল গাবুরা। এই দ্বীপের ৪৫ হাজার মানুষের প্রতিনিয়ত নদী ভাঙণের মত ভয়ংকর প্রাকৃতিক দুর্যোগকে মোকাবিলা করে টিকে আছে। ২০০৯ সালের ২৫শে মে সোমবার দিনটির কথা এই জনপদের মানুষেরা আজও ভুলতে পারে না। ঘূর্ণিঝড় আইলার প্রলয় বয়ে গিয়েছিল সেদিন। অনেকেই হারিয়েছে তাদের পিতা-মাতা, আবার অনেকেই তাদের পরম স্নেহের সন্তানদের হারিয়েছে। সহায় সম্পদ হারিয়ে বহু মানুষ পথে বসে।

খান আবু হাসান বলেন, গত কয়েক বছরে গাবুরার অনেক পরিবর্তন হয়েছে। তবে মানুষের মাঝে পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতার মাত্রা এখনও অনেক কম। ২০১৭ সালে এখানকার চাঁদনিমূখা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ব্যতিক্রমী এক কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। যার নাম ‘সবুজ উপকূল’। এই কর্মসূচির আওতায় আমরা পড়ূয়া দল দ্বীপের পরিবেশ পর্যবেক্ষণে যাই। পরিবেশ পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে আমরা জানার চেষ্টা করি কিভাবে এই দ্বীপ দিনের পর দিন পরিবেশ বিপর্যয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এই দ্বীপকে কিভাবে টিকিয়ে রাখা যায়; সে বিষয়ে আমরা মানুষের মতামত নেই। তথ্য সংগ্রহ করি এবং প্রতিবেদন তৈরি। আর সে প্রতিবেদন অনুষ্ঠানের দিন সকলের সামনে উপস্থাপন করি। এরফলে আমাদের মাঝে এক ভিন্ন উপলব্ধি আসে।

খান আবু হাসান বলেন, সবুজ উপকূল কর্মসূচি এবং এর আওতায় পরিবেশ পর্যবেক্ষণ কার্যক্রমে অংশ নেওয়ার ফলে আমাদের গাবুরার জন্য কিছু একটা করার চিন্তা মাথায় আসে। আমরা বন্ধুরা মিলে গাবুরায় পরিবেশ সুরক্ষার আন্দোলন শুরু করি। একটি বসার জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে পাঠাগার প্রতিষ্ঠারও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এলাকার মনুষ আমাদের সহযোগিতাও করছে।

শ্যামনগরের দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার চাঁদনীমুখা এম এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে উৎসবমূখর পরিবেশে সবুজ উপকূল কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৭ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর। কর্মসূচির আওতায় ছিল রচনা লিখন, পত্র লিখন, ছবি আঁকা ও সংবাদ লিখন প্রতিযোগিতা। আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এছাড়াও ‘এসো সবুজের আহ্বানে, গড়ি সবুজ উপকূেল’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং গাছের চারা রোপণ করা হয়। কর্মসূচিতে বিদ্যালয়ের একদল পড়ুয়া পরিবেশ পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করে। বিদ্যালয়ে প্রকাশিত হয় দেয়াল পত্রিকা ‘বেলাভূমি’র বিশেষ সংখ্যা।

সৃজনশীল মেধা বিকাশের অন্যতম মাধ্যম দেয়াল পত্রিকা ‘বেলাভূমি’ এখন নিয়মিত বের হচ্ছে শ্যামনগরের মুন্সীগঞ্জে সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় থেকে। শিক্ষার্থীরাই বিষয় নির্ধারণ করে, তারাই তথ্য সংগ্রহ করে, তারাই প্রতিবেদন লেখে। ওদের মধ্যেই কেউ কেউ আমার সম্পাদনার দায়িত্ব নেয়। কর্মসূচি প্রসঙ্গে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার বৈদ্য বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে অনেক কর্মসূচি হয়। কিন্তু সবুজ উপকূল কর্মসূচি একটু আলাদা। এ কর্মসূচির মাধ্যমে স্কুলের ছাত্রীদের মেধা বিকাশের যে সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে, তা আগামী জীবনে কাজে লাগবে।

২০১৬ ও ২০১৭ সালে শ্যামনগরের মুন্সীগঞ্জে সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সবুজ উপকূল কর্মসূচিতে অংশ নেয় আশপাশের বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। প্রথমবার শ্যামনগর ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আহসান উল্লাহ শরীফী এবং দ্বিতীয়বার শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) এস এম মহসীন উল মূলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হয়ে আসেন। দুটো অনুষ্ঠানেই স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। সকলেই উপকূলের পড়ুয়াদের মাঝে পরিবেশ সচেতনতা বাড়ানো, সৃজনশীল মেধার বিকাশ, লেখালেখির মাধ্যমে তথ্যে প্রবেশাধিকারসহ জীবন দক্ষতা বাড়াতে এ ধরণের কর্মসূচির ওপর জোর দেন।

শ্যামনগরের তিনটি অনুষ্ঠানেরই উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করেন ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক শ্যামনগর শাখার ব্যবস্থাপক মো. রাশিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, শুধু পাঠ্য বইয়ের পড়া মুখস্ত করে পরিক্ষায় ভালো ফলাফল করলেই চলবে না। এর পাশাপাশি চারপাশের জগত সম্পর্কে জ্ঞান আহরণ করতে হবে। পরিবেশ সুরক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে। উপকূলের প্রাকৃতিক দুর্যোগ সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। ভালো ফলাফলের সঙ্গে সাধারণ জ্ঞানের সংমিশ্রনই পারে মানুষের মত মানুুষ করে তুলতে। তোমাদেরকে ভালো মানুষ হয়ে প্রদীপের মত আলো জ্বালাতে হবে, যাতে তোমার আলোতে আরও অনেকজন আলোকিত হতে পারে।

সবুজ উপকূল কর্মসূচি বাস্তবায়নে স্থানীয় সংগঠকের দায়িত্বে থাকা সুন্দরবন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও সাংবাদিক রনজিৎ বর্মন এ কর্মসূচির ইতিবাচক পরিবর্তন সম্পর্কে বলেন, সবুজ উপকূল কর্মসূচি এলাকার ছেলেমেয়েদের চোখ খুলে দিয়েছে। দেয়াল পত্রিকা এত সহজে বের করা যায়; তা ছেলেমেয়েরা এই কর্মসূচির মাধ্যমেই শিখেছে। তারা এখন নিয়মিত দেয়াল পত্রিকা বের করছে।

তিনি বলেন, সবুজ উপকূল কর্মসূচির বিশেষ বৈশিষ্ট্য ছিল, এ অনুষ্ঠান উপস্থাপনের দায়িত্ব পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। এরফলে ওদের মধ্যে সাহস তৈরি হয়েছে। যা ওদের পরেও কাজে লাগছে। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা যে উপস্থাপন করেছে, তা নয়, ওরা বক্তব্য রেখেছে। পরিবেশ পর্যক্ষেণ, প্রতিবেদন তৈরি এবং উপস্থাপনের মত কাজও করেছে ওরা। এর মধ্যদিয়ে ওদের ভেতরে চারপাশের পরিবেশ এবং পরিবেশ সুরক্ষা প্রসঙ্গেও সচেতনতা এসেছে।

শ্যামনগরের দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরায় অনুষ্ঠিত সবুজ উপকূল কর্মসূচির স্থানীয় সংগঠকের দায়িত্ব পালনকারী দৈনিক পত্রদূত-এর স্থানীয় প্রতিনিধি আবদুল হালিম বলেন, প্রান্তিক জনপদের শিশুদের মেধা বিকাশ ও পরিবেশ সচেতনতার লক্ষ্যে এটা ছিল ব্যতিক্রমী এক আয়োজন। আমার নিজের কাছেও ভালো লেগেছে, এ ধরণের একটি কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে। সবুজ উপকূল কর্মসূচির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছেলেমেয়েরা এখন নিজেরাই পরিবেশ সুরক্ষার দায়িত্ব নিয়েছে।

//প্রতিবেদন/২১০৪২০১৮//


এ বিভাগের আরো খবর...
উপকূল দিবসের দাবি উপকূল দিবসের দাবি
‘কুকরির জনারণ্যে সম্প্রীতির সুবাতাস’ -আবুল হাসেম মহাজন ‘কুকরির জনারণ্যে সম্প্রীতির সুবাতাস’ -আবুল হাসেম মহাজন
বরগুনায় বাণিজ্যিক সূর্যমুখী চাষে লাভবান কৃষক বরগুনায় বাণিজ্যিক সূর্যমুখী চাষে লাভবান কৃষক
পাইকগাছার পড়ুয়ারাদের প্রকৃতিপাঠ, সবুজে গড়ছে জীবন পাইকগাছার পড়ুয়ারাদের প্রকৃতিপাঠ, সবুজে গড়ছে জীবন
উপকূলের উদীয়মান সংবাদকর্মী ছোটন সাহা’র ছুটে চলার গল্প উপকূলের উদীয়মান সংবাদকর্মী ছোটন সাহা’র ছুটে চলার গল্প
কমলনগরে পড়ুয়াদের সবুজ জগত, অনুপ্রেরণায় ‘সবুজ উপকূল’ কমলনগরে পড়ুয়াদের সবুজ জগত, অনুপ্রেরণায় ‘সবুজ উপকূল’
জনতার প্রিয় মানুষ এমপি মুকুল জনতার প্রিয় মানুষ এমপি মুকুল
একুশে বইমেলায় সাংবাদিক ছোটন সাহার ‘মেঘের আঁধারে’ একুশে বইমেলায় সাংবাদিক ছোটন সাহার ‘মেঘের আঁধারে’
‘সমৃদ্ধশালী মডেল ঢালচর গড়তে চাই’ : আবদুস সালাম হাওলাদার ‘সমৃদ্ধশালী মডেল ঢালচর গড়তে চাই’ : আবদুস সালাম হাওলাদার

শ্যামনগরে পড়ুয়ারা গড়ে তুলেছে পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলন
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)