লক্ষ্মীপুরে কিষাণীদের ধান শুকানোর ব্যস্ততা

কিষাণীদের ধান শুকানোর ব্যস্ততা

লক্ষ্মীপুর : এখন অগ্রহায়ণ মাস মানে নবান্নের মাস। “আবার জমবে মেলা বটতলা হাটখোলা, অগ্রাহায়ণে নবান্নের উৎসবে ভরে উঠবে সোনার বাংলা, ভরে উঠবে সোনায়, বিশ্ব অবাক চেয়ে রবে”। নবান্নের এই মাসে বিখ্যাত এই গান যেন সকল কষক-কৃষাণির মনে বাজে। এবছর ভালো ফসল হওয়ায় কৃষকের মুখে যেন হাসি লেগেই আছে। লক্ষ্মীপুর  সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেল, ধান কাটা প্রায় শেষ। ব্যস্ত রয়েছে কিষাণীরা। ক’দিন আগে মাঠ থেকে ধান কেটে এনেছে। এখন ধান সিদ্ধ ও শুকাতে ব্যস্ততায় সময় কাটে তাদের। তাই উঠানে কাদা মটির পলেপ দিয়ে ধান শুকাচ্ছে তারা। শনিবার সদর উপজেলার শহর কসবা গ্রাম ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। ভোর রাতে উঠে চুলায় ধান সিদ্ধ করা শুরু করে। তার পর সিদ্ধ ধান উঠানে শুকাতে নিয়ে যায়। কেউ আবার বাতাসের অপেক্ষায় থাকে ধান থেকে চিটা মুক্ত করতে। কখন বাতাস আসবে, সেই আপেক্ষায় বসে থাকে দক্ষিনমুখী হয়ে। রাত দিন হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করে চলেছে। শহর কসবা কিষাণী সামসুর নাহার বলেন, ভোর বেলা থেকে রাত পর্যন্ত ধান নিয়ে ব্যস্ত আছি ধান শুকানো নিয়ে। ঠিকমত খাবার খাওয়ার সময়ও পাচ্ছিনা। এবার ফসল ভালো হওয়ায় কাঝ করতে ভালো লাগছে তাদের। পরিবারের সকল সদস্য এক সাথে মনের আনন্দে কাজ করছে।

//প্রতিবেদন/০৫১২২০১৬//

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য