সবুজ উপকূল ২০১৬, খুলনার কয়রায় আমাদী স্কুলে বেলাভূমি’র ৩য় সংখ্যা

আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বেলাভূমি’র ৩য় সংখ্যা

আমাদী, কয়রা, খুলনা, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬ : পশ্চিম উপকূলের খুলনা জেলার সুন্দরবন লাগোয়া উপজেলা কয়রার আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা বের করলো দেয়াল পত্রিকা বেলাভূমি’র ৩য় সংখ্যা। পত্রিকাটিতে চারপাশের নানান বিষয় নিয়ে পড়ুয়াদের লেখা প্রতিবেদন, রচনা ও হাতে অাঁকা ছবি স্থান পেয়েছে। কেউ লিখেছে সুন্দরবনের গাছপালা নিয়ে, কেউবা বনের প্রাণী নিয়ে। আবার কারও লেখায় উঠে এসে সমুদ্র তীরবর্তীএলাকার মানুষের দু:খ-কষ্টের কথা।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিবেশ সচেতনতা বাড়ানো আর সৃজনশীল মেধা বিকাশের লক্ষ্যে বেলাভূমি’র প্রকাশনা অব্যাহত রাখার দাবি পড়ুয়াদের। আর তাদের এ দাবি পূরণে সর্বাত্মক সহায়তা দেয়ার অঙ্গীকার করেছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ‘ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক সবুজ উপকূল ২০১৬’ কর্মসূচি উপলক্ষে বেলাভূমি’র এ সংখ্যাটি প্রকাশিত হয়। ২০১৬ সালের শুরুর দিকে এই বিদ্যালয়ে বেলাভূমি’র প্রকাশ শুরু হয়। কর্মসূচির বাইরেও বেলাভূমি’র প্রকাশনা অব্যাহত রয়েছে।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় উপকূল জুড়ে স্কুল পড়ুয়াদের নিয়ে এ ব্যতিক্রমী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে উপকূল বিষয়ক ওয়েব জার্নাল ‘উপকূল বাংলাদেশ’।

উপকূলের পড়ুয়াদের পরিবেশ সচেতনতা বাড়ানো, সৃজনশীল মেধার বিকাশ, লেখালেখি চর্চার মাধ্যমে তথ্যে প্রবেশাধিকারসহ জীবন দক্ষতা বাড়ানো এই কর্মসূচির অন্যতম লক্ষ্য।

বেলাভূমি’র এই সংখ্যাটিতে আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ছাড়াও পার্শবর্তী অন্যান্য স্কুলের পড়ুয়া লিখেছে। চন্ডিপুর ইউনাইটেড মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ধ্রুবজ্যোতি রায় লিখেছে ‘গ্রন্থাগার চাই’ শিরোনামে। আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর সুরাইয়া আক্তারের লেখার শিরোনাম ‘শিশু শ্রমের প্রতিকার চাই’। একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর নূরজাহান আক্তার রজনী লিখেছে ‘ইভটিজিংয়ের-এর বিরুদ্ধে গণসচেতনতা’ শিরোনামে।

‘কয়রায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বেহাল দশা’ শিরোনামে প্রতিবেদন লিখেছে আমাদী জায়গীরমহল তকিমউদ্দীন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর মো. রাশেদুজ্জামান। একই বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর আফসানা খানম অাঁখির লেখার শিরোনাম ‘সমাজের নারী ও শিশুর অকাল মৃত্যু’। একই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর শারমিন আক্তার লিখেছে ‘সবুজ উপকূল সুরক্ষায় আমিও অংশীদার’ শিরোনামে। একই বিষয়ে লিখেছে একই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর অরপিতা দাশ তিথি। ‘সবুজের লীলাক্ষেত্র’ শিরোনামে লিখেছে একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর সাগর মন্ডল। একই বিদ্যালয়ের ফারিয়া আসাদ মিতা লিখেছে ‘সুন্দরবন’ শিরোনামে। আর বাঁশখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর পূজা সরকার লিখেছে ‘উপকূল’ শিরোনামে।

//প্রতিবেদন/উপকূল বাংলাদেশ/০৭০৯২০১৬//

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য