সবুজ উপকূল ২০১৬, জীবনের জন্য সবুজ রক্ষার আহবান অনন্যা অধিকারীর কণ্ঠে

পাইকগাছায় সবুজ উপকূল ২০১৬-এর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিচ্ছে অনন্যা অধিকারী

পাইকগাছা, খুলনা, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ : খুলনার প্রান্তিক উপজেলা পাইকগাছার ভোলানাথ সুখদা সুন্দরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী অনন্যা অধিকারী বলেছে, আমাদের জীবনের জন্যেই উপকূলের সবুজ রক্ষা করতে হবে। সহপাঠীদের প্রতি সবুজ উপকূল সুরক্ষার এই আহবান জানিয়ে অনন্যা বললো, সবুজ উপকূল সুরক্ষায় আসুন সবাই মিলে সবুজ আন্দোলন গড়ি

শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) খুলনার পাইকগাছায় ভোলানাথ সুখদা সুন্দরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক সবুজ উপকূল ২০১৬’ কর্মসূচির অনুষ্ঠানে পড়ুয়াদের পক্ষে বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে অনন্যা অধিকারী এসব কথা বলেছে।

অনন্যা অধিকারী তার বক্তব্যে উল্লেখ করে, ‘বৃক্ষ নেই প্রাণের অস্তিত্ব নেই। বৃক্ষহীন প্রথিবী যেন প্রাণহীন মহাশ্মশান।’ এই পৃথিবীকে সবুজ শ্যামলে ভরে দিয়েছে প্রাণ প্রদায়ী বৃক্ষরাজি। এ বিশ্বকে সুশীতল ও বাসযোগ্য করে তোলার ক্ষেত্রে বৃক্ষের অবদান অনস্বীকার্য। বৃক্ষ আমাদের পরম উপকারী নিরব বন্ধু। অকৃপন তার দান। সে আমাদের খাদ্য, বস্ত্র, আশ্রয়, শিক্ষা, চিকিৎসা এই পাঁচটি মৌলিক চাহিদা পূরণে যেমন সহায়তা করে, তেমনি সৌন্দর্য্যে আমাদের হৃদয়-মন আপ্লুত হয়ে ওঠে। কিন্তু পরম পরিতাপের বিষয়, বৃক্ষের এতসব উপকারী দিক থাকা সত্বেও অজ্ঞতার কারণে, সচেতনতার অভাবে, মানুষ ব্যাপক হারে গাছপালা কেটে বন উজাড় করে ফেলছে। ফলে বিনাশ হচ্ছে উপকূল।

অন্যান্যা আরও বলে, সবুজ বলতে বুঝি গাছপালা, বনভূমি আর বনায়ন। আর উপকূল বলতে বুঝি সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চল, যেখানে রয়েছে সবুজের লীলাভূমি। কিন্তু অতিরিক্ত গাছপালা কাটার ফলে উপকূলের মাটি ক্ষয় হচ্ছে। ফলে বন্যা, ঝড়-জলোচ্ছ্বাসের মত ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপদ বিশ্বজুড়ে সর্বনাশা বিপর্যয় ডেকে আনছে।

অনন্যার লেখা বক্তব্যের কপি

অনন্যার লেখা বক্তব্যের কপি

সবুজ উপকূল সুরক্ষার প্রস্তাব রেখে অন্যান্য অধিকারী বলেন, উপকূল জুড়ে ব্যাপক বনায়ন কর্মসূচি গ্রহন করে এইসব প্রাকৃতিক বিপদ কমিয়ে আনা সম্ভব। আমাদের জীবনের জন্য, পরিবেশের জন্য, খাদ্যের জন্য, নির্মাণের জন্য প্রতিটি পদক্ষেপে বৃক্ষের অবদান অনস্বীকার্য। তাই আমরা যদি উপকূল বাঁচাতে চাই তাহলে উপকূলে সবুজ বেষ্টনি তৈরি করতে হবে। কেননা, সবুজকে রক্ষা করা মানেই নিজেদেরকে রক্ষা করা।

অনন্যা বলে, এজন্য শুধু এক-দু’জনকে সচেতন হলে চলবে না, বরং উপকূলের সকল অধিবাসীসহ সমগ্র বিশ্বকে সচেতনতামূলক ভাবনা গড়ে তুলতে হবে। তাই সবুজ উপকূল সুরক্ষায় আসুন সবাই মিলে সবুজ আন্দোলন গড়ি আর স্লোগান তুলি, ‘লাগালে গাছ গড়ে উঠবে সবুজ উপকূল, রক্ষা পাবে সমগ্র উপকূল। সবুজকে বাঁচাই, সবুজে বাঁচি।

//প্রতিবেদন উপকূল বাংলাদেশ/০৪০৯২০১৬//

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য