চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে নোয়াখালী প্রেসক্লাবে আলোচনা

নোয়াখালীতে চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনের স্মরণ সভার একাংশনোয়াখালী : চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হল নোয়াখালীতে। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সহিদ উদ্দিন এস্কান্দার কচি মিলনায়তনে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। কোস্টাল জার্নালিস্ট ফোরাম অব বাংলাদেশ-সিজেএফবি’র সহযোগিতায় এ স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নোয়াখালী প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী সদস্য আবু নাছের মঞ্জুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বখতিয়ার সিকদার, সহ সভাপতি মনিরুজ্জামান চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন বিষাদ, যুগ্ম সম্পাদক আকবর হোসেন সোহাগ, একুশে টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি জাহিদুর রহমান শামীম, এসএ টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি আবদুর রহিম বাবুল, দৈনিক প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান, সুপ্র’র জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম মাসুদ, সাংবাদিক ও গবেষক মাহমুদুল হক ফয়েজ, দৈনিক বণিক বার্তার জেলা প্রতিনিধি অমৃত লাল ভৌমিক সুমন।

বক্তাগণ চারণ সাংবাদিক মোনাজাত উদ্দিনের কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে তাঁর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বঞ্চিত, নির্যাতিত, অসহায়, হতদরিদ্র মানুষের খবর গণমাধ্যমে তুলে ধরার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

প্রসঙ্গত, চারণ সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিন ১৯৯৫ সালের ২৯ ডিসেম্বর ফেরির ছাদ থেকে যমুনা নদীতে পড়ে প্রাণ হারান। স্থানীয় সাংবাদিক সংগঠণের সহায়তায় এ বছর থেকে উপকূল জুড়ে এই দিনটি পালনের উদ্যোগ নিয়েছে কোস্টাল জার্নালিস্ট ফোরাম অব বাংলাদেশ-সিজেএফবি। এবার উপকূলের ৩০ স্থানে দিবসটি পালিত হচ্ছে।

//আবু নাছের মঞ্জু/ নোয়াখালী/২৯১২২৯১৫//

রফিকুল ইসলাম মন্টু

রফিকুল ইসলাম মন্টু

উপকূল অনুসন্ধানী সাংবাদিক। বাংলাদেশের সমগ্র উপকূলের ৭১০ কিলোমিটার জুড়ে তার পদচারণা। উপকূলীয় ১৬ জেলার প্রান্তিক জনপদ ঘুরে প্রতিবেদন লিখেন। পেশাগত কাজে স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো পুরস্কার।
পাঠকের মন্তব্য