কাউখালীতে পানের দাম পড়ে যাওয়ায় হতাশ চাষিরা

- রবিউল হাসান রবিন

হতাশ কাউখালীর পানচাষিকাউখালী (পিরোজপুর) : কাউখালীর সুস্বাদু পানের সুখ্যাতি রয়েছে দেশজুড়ে। কিন্তু এবছর কাউখালীর হাট-বাজারগুলোতে পানের দাম পড়ে যাওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছেন উপজেলার প্রায় দেড় হাজার পান চাষি। বৈধ, অবৈধ পথে ভারত থেকে সস্তায় পান আসার কারণে দেশীয় পানের বাজারে ধস নেমেছে। ফলে চাষিরা পড়েছেন বিপাকে।

কাউখালী পান চাষি সমিতি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় দেড় হাজার পান চাষি আছেন যারা ১০০-১৫০ হেক্টর জমিতে পান চাষ করছেন। উপজেলার কয়েক হাজার পরিবারের একমাত্র আয়ের উত্স এই পান চাষ। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে পান চাষিদের কয়েক বছর লোকসান গুনতে হয়েছে।

গতবছর পানের ভাল ফলন ও আশানুরূপ দাম পাওয়ায় এবার চাষিরা ঝুঁকে পড়েন পান চাষে। কিন্তু এবার বৈধ ও অবৈধ পথে ভারত থেকে বিপুল পরিমাণ পান আসায় কাউখালী এবং সেই সঙ্গে ঝালকাঠী জেলার চাষিরা পানের বরজ নিয়ে পড়েছেন বিপাকে।

একদিকে এক শ্রেণীর কাঁচামাল ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে পান আমদানি করছেন, অন্যদিকে অবৈধভাবে চোরাই পথেও সেদেশ থেকে আসছে পান। এসব পান বাজারজাত হওয়ায় দিন দিন কমতে শুরু করেছে দেশি পানের দাম। দাম এতোই কম যে উত্পাদন খরচ তুলতেই হিমশিম খাচ্ছেন পান চাষিরা। লোকসানের চাপে অনেকে গুটিয়ে নিয়েছেন পানের বরজ।

চাষিরা বলছেন, এক মাস আগেও যে পান ১শ’ টাকা বিড়া দরে বিক্রি হয়েছে সেই পান বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে প্রতি বিড়া ২০ টাকায়। যার ফলে পানের বরজে বিনিয়োগ করা অর্থ কোনোভাবেই উঠে আসবে না বলে আশংকা করছেন চাষিরা।

সম্প্রতি হাট-বাজার ঘুরে পান চাষিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চলতি মওসুমে অনুকূল আবহাওয়ার কারণে এবং পানের বরজে কোন প্রকার রোগবালাই দেখা না দেয়ায় বিপুল পরিমাণ পান উত্পাদন হয়েছে।

বিগত বছর দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ায় পান বিক্রি করে শত শত পরিবার লাভবান হয়। তাই চলতি বছরের শুরু থেকে পান উত্পাদনে উত্সাহী হয়ে কৃষকরা অধিক পরিমাণে পানের বরজ করেছে। কিন্তু বাম্পার ফলন হলেও দাম পড়ে যাওয়ায় চাষিদের লোকসান গুনতে হবে।

কাউখালীসহ পিরোজপুরের ঐতিহ্যবাহী পান প তিদিন ঢাকা, চাঁদপুর কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ হয়। এছাড়া দেশের বাইরে রপ্তানিও করা হয় এই অঞ্চলের পান। কিন্তু এবারে পিরোজপুরে পান চাষিদের কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। পিরোজপুর জেলা পান চাষি সমিতির সভাপতি কমরেড নিমাই মন্ডল বলেন, ঋণ ও মহাজনী দাদন নিয়ে চাষিরা পান চাষ করে থাকেন। কিন্তু অনেকে ভারত থেকে এলসির মাধ্যমে পান আমদানি করায় এ অঞ্চলের চাষিরা বিপাকে পড়েছেন। তারা বাজারে পানের দাম পাচ্ছেন না। পান চাষিদের বাঁচাতে তাই ভারত থেকে পান আমদানি বন্ধ করার দাবি জানান তিনি।

তিনি বলেন, বর্তমানে এই জেলায় পান চাষিদের কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে সরকার পান চাষিদের আর্থিকভাবে সহযোগিতা করলে আবারও তারা ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন।

পান আমদানি বন্ধের দাবিতে সম্প্রতি আন্দোলনে নেমেছেন উপজেলার পান চাষিরা। মহাসড়কে তারা ঘন ঘন মানববন্ধন, মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করছেন। তাদের এ আন্দোলনকে যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত বলে দাবি করছেন এলাকার অনেক জনপ্রতিনিধিসহ সচেতন মহল।

//রবিউল হাসান রবিন/ উপকূল বাংলাদেশ/কাউখালী-পিরোজপুর/১৪০৭২০১৫//


এ বিভাগের আরো খবর...
তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু
জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘সবুজ উপকূল’ জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘সবুজ উপকূল’
সবুজ উপকূল, সাগরপাড়ে আলোর হাতছানি সবুজ উপকূল, সাগরপাড়ে আলোর হাতছানি
‘সবুজ উপকূল’ পড়ুয়াদের সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটাচ্ছে ‘সবুজ উপকূল’ পড়ুয়াদের সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটাচ্ছে
‘সবুজ উপকূল’-এর পথে হাঁটছে অসংখ্য সবুজযোদ্ধা ‘সবুজ উপকূল’-এর পথে হাঁটছে অসংখ্য সবুজযোদ্ধা
উপকূল বাঁচিয়ে রাখতে ‘সবুজ উপকূল’ মাইলফলক উপকূল বাঁচিয়ে রাখতে ‘সবুজ উপকূল’ মাইলফলক
উপকূলের তরুণদের প্রকাশের আলোয় আনছে ‘সবুজ উপকূল’ উপকূলের তরুণদের প্রকাশের আলোয় আনছে ‘সবুজ উপকূল’
সবুজ উপকূল, জেগে উঠছে আগামী প্রজন্ম সবুজ উপকূল, জেগে উঠছে আগামী প্রজন্ম
লক্ষ্মীপুরে সকল শিক্ষাঙ্গনে লাইব্রেরি গড়ে তোলার দাবি লক্ষ্মীপুরে সকল শিক্ষাঙ্গনে লাইব্রেরি গড়ে তোলার দাবি
আসুন, ১২ নভেম্বর ‘উপকূল দিবস’ পালন করি আসুন, ১২ নভেম্বর ‘উপকূল দিবস’ পালন করি

কাউখালীতে পানের দাম পড়ে যাওয়ায় হতাশ চাষিরা
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)