সবুজ উপকূল কর্মসূচি উপকূল জুড়ে সাড়া ফেলেছে

- প্রতিবেদন উপকূল বাংলাদেশ

সবুজ উপকূল ২০১৬-এর চিত্র

ঢাকা : ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘এফএসআইবিএল সবুজ উপকূল কর্মসূচি’ উপকূল অঞ্চল জুড়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। প্রথম ও দ্বিতীয় বছরের (২০১৫ ও ২০১৬) কার্যক্রম উপকূলের শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ স্থানীয় নাগরিক সমাজের মাঝে বিপুল উৎসাহ জাগিয়েছে। বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে গাছ লাগানোসহ পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতা বাড়ছে সবার মাঝে।

দুর্যোগ মোকাবেলাসহ বিভিন্ন বিষয়ে উপকূলের মানুষের সচেতনতার মাত্রা খুবই সীমিত। তাদের কাছে উন্নয়ন তথ্য খুব একটা পৌঁছায় না। কেবলমাত্র সচেতনতা বৃদ্ধির মধ্যদিয়ে উপকূলের মানুষের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব। আর চারপাশের পরিবেশ সংরক্ষণ কার্যক্রমের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে আগামী প্রজন্মকে। কারণ, উপকূলের বহুমূখী পরিবর্তনের মধ্যদিয়ে বেড়ে উঠছে আগামী প্রজন্ম। নিজেদের বাঁচার প্রয়োজনে ওরা নিজেরাই দায়িত্ব গ্রহন করতে পারে। আর সেজন্যে ওদেরকে সচেতন করে তুলতে হবে। পরিবেশ সংরক্ষণে নতুন নতুন তথ্য ছড়িয়ে দিতে হবে ওদের মাঝে।

উপকূলে বেড়ে ওঠা আগামী প্রজন্মকে সচেতন করে তুলতেই ২০১৫ ও ২০১৬ কর্মসূচির সাফল্যের পথ ধরে ২০১৭ সালেও একই ধরণের কর্মসূচির পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে। এবার উপকূলের ১৪টি জেলার ১৯টি উপজেলার ২০টি স্থানে কর্মসূচি আয়োজনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রায় ১০০টি স্কুলের ৭০ হাজার শিক্ষার্থী প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এ কর্মসূচির আওতায় আসবে। স্কুল-ভিত্তিক ২০টি কর্মসূচি ছাড়াও ঢাকায় সূচনা অনুষ্ঠান ও সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। সমাপনী অনুষ্ঠানে উপকূলের মেধাবী শিক্ষার্থীদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। খুদে লেখক, গবেষক ও সম্পাদকদের সম্মিলন ঘটবে ওই কর্মসূচিতে।

সবুজ উপকূল কর্মসূচির ধারণা

জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকিতে বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চল। পশ্চিমে সুন্দরবন থেকে শুরু করে পূর্বে টেকনাফ পর্যন্ত ৭১০ কিলোমিটার তটরেখা বেষ্টিত এই অঞ্চলে প্রতি বছরই নতুন দুর্যোগ আঘাত হানছে। কখনো ঘূর্ণিঝড়, কখনো জলোচ্ছ¡াস আবার কখনো নদী-ভাঙণ তীব্র হয়ে দেখা দেয়। এরফলে জীববৈচিত্র্য বদলে যায়, বিরূপ প্রভাব পড়ে জনজীবনে। প্রতিবছর বহু মানুষ স্থানান্তরিত হয়। বাড়িঘর বদল করে ছুঁটে চলে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে। এভাবে বহু মানুষ বাপদাদার ভিটেসহ বিপুল পরিমাণ সম্পদ হারায়। বছরে বছরে এত ক্ষতি সত্বেও ঝুঁকি মোকাবেলায় কার্যকর উদ্যোগ খুবই কম। বিশেষ করে জনসচেতনতা বাড়াতে তৃণমূলে বিশেষ কোন কর্মসূচি চোখে পড়ে না।

কেন এ কর্মসূচির
কয়েকটি প্রেক্ষাপটের ওপর ভিত্তি করে এ কর্মসূচির পরিকল্পনা করা হয়েছে। উপকূল অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে আছে। এদের মাঝে চারপাশের পরিবেশ সম্পর্কে সচেতনতা অনেক কম। জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে এদের পরিস্কার ধারণা নেই। চাপাশের সাধারণ জ্ঞানের অভাব রয়েছে। উপকূলের শিক্ষার্থীদের সচেতনতামূলক তথ্য প্রাপ্তির সুযোগ কম। পরিবর্তন সম্পর্কে উদ্যোগ গ্রহনের অভাবও লক্ষ্যণীয়। এ ধরণের কর্মসূচি অব্যাহত থাকলে শিক্ষার্থীরা অনেক তথ্য পেয়ে সচেতন হয়ে বেড়ে উঠতে পারবে।

কর্মসূচির উদ্দেশ্য
কয়েকটি লক্ষ্য সামনে রেখে এবারের কর্মসূচির পরিকল্পনা করা হয়েছে। এগুলো হলো : ক. চারপাশের পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন করা; খ. জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে ধারণা দেয়া; গ. পরিবেশ সংরক্ষণে উদ্যোগী করে তোলা; ঘ. উপকূল সুরক্ষায় সচেতন করা।

প্রত্যাশিত ফলাফল
এই কর্মসূচি বাস্তবায়িত হলে পরিবেশ সম্পর্কে উপকূলের স্কুল পড়ুয়াদের মাঝে সচেতনতা বাড়বে। শিক্ষার্থীরা পরিবেশ রক্ষায় সচেষ্ট হবে। একইসঙ্গে তাদের মাঝে জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে ধারণা তৈরি হবে। পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে তারা সক্ষম হয়ে উঠবে। পরিবেশ সম্পর্কে জ্ঞান আহরণ হবে। আহরিত জ্ঞান সংরক্ষণ হবে এবং জ্ঞান ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব হবে। সেইসঙ্গে আহরিত জ্ঞান বিনিময় হবে। শিক্ষার্থীরা আহরিত জ্ঞান ব্যক্তিগত জীবনে কাজে লাগাতে পারবে। দু’বছরের কর্মসূচিতে এরইমধ্যে পড়ুয়াদের মাঝে এ ধরণের ধারণা তৈরি হয়েছে।

লক্ষ্য জনগোষ্ঠী ও এলাকা
প্রত্যক্ষভাবে এ কর্মসূচির লক্ষ্য জনগোষ্ঠী উপকূলের স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থী। তবে পরোক্ষভাবে অভিভাবক, শিক্ষক ও স্থানীয় নাগরিকেরাও কর্মসূচির সঙ্গে সম্পৃক্ত হবেন। এবারে প্রস্তাবিত সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচিতে উপকূলের ১৪ জেলার ১৯ উপজেলা কাভার হবে। স্কুল-ভিত্তিক কর্মসূচি আয়োজন করা হবে ২০টি স্থানে। এইসব কর্মসূচিতে প্রায় ১০০টি স্কুলের ৭০,০০০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকায় কেন্দ্রীয় দু’টি কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।

//প্রতিবেদন/উপকূল বাংলাদেশ/১৭০৭২০১৭//


এ বিভাগের আরো খবর...
আলোকযাত্রা ভোলা দলের সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ আলোকযাত্রা ভোলা দলের সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ
সবুজ উপকূল ২০১৭-এর আয়োজন উপকূলের ২০ স্থানে সবুজ উপকূল ২০১৭-এর আয়োজন উপকূলের ২০ স্থানে
স্থানীয় বিশিষ্টজনদের মূল্যায়নে সবুজ উপকূল কর্মসূচি স্থানীয় বিশিষ্টজনদের মূল্যায়নে সবুজ উপকূল কর্মসূচি
শিগগিরই শুরু হচ্ছে সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি শিগগিরই শুরু হচ্ছে সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি
১৪ বছরের কিশোরীকে বাল্যবিয়ে থেকে বাঁচালো আলোকযাত্রা মহেশখালী দল ১৪ বছরের কিশোরীকে বাল্যবিয়ে থেকে বাঁচালো আলোকযাত্রা মহেশখালী দল
ঈদ আনন্দে কমলনগর মেঘনা বীচে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় ঈদ আনন্দে কমলনগর মেঘনা বীচে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়
ঈদে পর্যটকদের পদচারণায় মুখর মতিরহাট মেঘনা বীচ ঈদে পর্যটকদের পদচারণায় মুখর মতিরহাট মেঘনা বীচ
মনপুরার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফুটালো আলোকযাত্রা দল মনপুরার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফুটালো আলোকযাত্রা দল
পর্যটকের ভিড় বাড়ছে লক্ষ্মীপুরের মতিরহাট মেঘনাতীরে পর্যটকের ভিড় বাড়ছে লক্ষ্মীপুরের মতিরহাট মেঘনাতীরে

সবুজ উপকূল কর্মসূচি উপকূল জুড়ে সাড়া ফেলেছে
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)