ঈদ আনন্দে কমলনগর মেঘনা বীচে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়

- জাহিদ হাসান তুহিন

ঈদ আনন্দে কমলনগর মেঘনা বীচে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়

কমলনগর, লক্ষ্মীপুর : উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুরের কমলনগর মেঘনা বীচে ঈদকে কেন্দ্র করে পর্যটকদের মিলন মেলায় পরিণত হচ্ছে কমলনগর উপজেলায় অবস্থিত মেঘনা বীচের মাতাব্বর হাট, মতিরহাট, লুধুয়া, কাদির পন্ডিতের হাট এলাকা। মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদে কর্মব্যস্ততা থেকে মুক্তি পেয়ে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরেছে মানুষগুলো। আর বাড়ি ফিরেই তারা বসে থাকেনি। পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে ভ্রমণে বেড়িয়ে পড়ছে সবাই।

লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী ও আশপাশের ভ্রমণ পিপাসুরা ঈদকে আনন্দময় করতে পাড়ি জমাচ্ছে কমলনগর মেঘনা বীচে। নদীর পাড়ের দক্ষিণা বাতাস, সাগর পানে মেঘনার ছুটে চলার দৃশ্য, জেলেদের ছোট ছোট নোকা ও জাহাজ ভেসে চলা, ভাঙ্গন প্রতিরোধ বাঁধের ইট-পাথরের ব্লক, সূর্যাস্তের মনোরম দৃশ্য নৌকা ও স্পীড বোট ভ্রমণ, পাখির দল উড়ে বেড়ানো এবং নদীর পাড়ে হেঁটে মনকে শীতল করার লোভ সামলাতে না পেরে ভ্রমণ পিপাসুরা ছুটে আসেন কমলনগর মেঘনা বীচে।

কমলনগর মেঘনা বীচে গিয়ে দেখা যায়, পর্যটকদের কেউ হেটে হেটে বাতাসের শীতল অনুভূতি উপভোগ করছে, কেউবা ক্যামেরা ও মোবাইলে ছবি তোলায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছে, আবার কেউবা নদীর পানির ছোঁয়া পেতে নেমে পড়ছে পানিতে।

সেলফি তোলা নিয়ে ব্যস্ত থাকা ফয়সাল নামের এক পর্যটকের কাছে জানা যায়, ফেসবুক বন্ধুদের কমলনগর মেঘনা বীচ ভ্রমণের ছবি দেখে সেও ছুটে এসেছে এইখানকার সৌন্দর্য উপভোগ করতে।

মেঘনা বীচে ঈদ উপলক্ষ্যে চোখে পড়ে ফুচকা, চানাচুর, ঝাল মুড়ি, পানীয়সহ বিভিন্ন খাবার বিক্রেতাদের। সারা বছর পর্যটকদের আনাগোনা থাকলেও বিভিন্ন উৎসবে পর্যটকদের ভীড় বেড়ে যায়।

কমলনগর মেঘনা বীচের মাতাব্বর হাট এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা ও হাজির হাট মিল্লাত একাডেমীর শিক্ষক আব্দুল মান্নান জানান, “উৎসবগুলোতে বীচে দেখা যায় উপচে পড়া ভীড়, বিশেষ করে ঈদের সময়। দূর দূরান্ত থেকে ছুটে আসা মানুষের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে উঠা বীচ হয়ে উঠে যেন এক মিলন মেলার স্থান।”

কমলনগর মেঘনা বীচের সৌন্দর্য অনলাইনে বন্ধুদের মাঝে তুলে ধরতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কমলনগর অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরামের সদস্যরা। তারা ফেসবুকে “কমলনগর মেঘনা বীচ-K M Beach” নামের পেইজ খুলে এবং নিজ নিজ প্রোফাইলে বীচের সৌন্দর্যের ছবি ফুটিয়ে তুলছে সবার মাঝে।

কমলনগর মেঘনা বীচের অন্যান্য এলাকা থেকে মাতাব্বর হাট এলাকায় পর্যটকদের সমাগম বেশি চোখে পড়ে। কারণ মেঘনা বীচের এই অঞ্চলের সম্প্রতি সড়ক ব্যবস্থার উন্নতি করা হয়েছে।

মতিরহাট এলাকার বাসিন্দা ও খুদে সাংবাদিক জুনাইদ আল হাবিব বলেন “বীচের মতিরহাট এলাকায় আসা পর্যটকদের তোরাবগঞ্জ-মতিরহাট সড়ক অবস্থা নাজুক হওয়ায় বিপাকে পড়তে হয়। তবুও পর্যটকরা ছুটে আসে মেঘনা বীচের অফার সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য। কমলনগর মেঘনা বীচের মান ধরে রাখতে এবং পর্যটকদের সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন কমলনগর অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরামের সদস্য ও স্থানীয় বাসিন্দারা।

কমলনগর উপজেলার মাতাব্বর হাট, লুধুয়া, কাদির পন্ডিতের হাট, মতিরহাট এলাকার এই কমলনগর মেঘনা বীচের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সরকার এগিয়ে আসবেন এমন প্রত্যাশা করেন কমলনগরবাসী ও পর্যটকেরা।

//প্রতিবেদন/২৯০৬২০১৭//


এ বিভাগের আরো খবর...
কুয়াকাটায় উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত কুয়াকাটায় উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত
কাঁঠালিয়ায় সবুজ সুরক্ষার আহবানের মধ্যদিয়ে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত কাঁঠালিয়ায় সবুজ সুরক্ষার আহবানের মধ্যদিয়ে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত
বাগেরহাটে উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত বাগেরহাটে উৎসবমূখর পরিবেশে ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত
উৎসবমূখর পরিবেশে খুলনার পাইকগাছায় ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত উৎসবমূখর পরিবেশে খুলনার পাইকগাছায় ‘সবুজ উপকূল’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত
সাতক্ষীরার শ্যামনগরের দ্বীপ গাবুরায় অনুষ্ঠিত হল সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি সাতক্ষীরার শ্যামনগরের দ্বীপ গাবুরায় অনুষ্ঠিত হল সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি
সাতক্ষীরার শ্যামনগর থেকে শুরু হলো সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি সাতক্ষীরার শ্যামনগর থেকে শুরু হলো সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচি
এবারের ঈদে ২ টেলিছবি ও ৫ নাটকে আজম খান এবারের ঈদে ২ টেলিছবি ও ৫ নাটকে আজম খান
বরগুনার পুলিশ লাইন স্কুলে দেয়াল পত্রিকা ‘বেলাভূমি’র যাত্রা শুরু বরগুনার পুলিশ লাইন স্কুলে দেয়াল পত্রিকা ‘বেলাভূমি’র যাত্রা শুরু
আলোকযাত্রা ভোলা দলের উদ্যোগে দু’দিনের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন আলোকযাত্রা ভোলা দলের উদ্যোগে দু’দিনের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন
ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় সবুজ উপকূল ২০১৭ কর্মসূচির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

ঈদ আনন্দে কমলনগর মেঘনা বীচে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)