কমলনগরের মতিরহাট হাইস্কুলে বেলাভূমি’র ২য় সংখ্যা প্রকাশিত

- প্রতিবেদন উপকূল বাংলাদেশ

মতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকবৃন্দ ও পড়ুয়াদের হাতে বেলাভূমি’র ২য় সংখ্যা

কমলনগর, লক্ষ্মীপুর : উপকূলের পড়ুয়াদের জনপ্রিয় দেয়াল পত্রিকা “বেলাভূমি’র ২য় সংখ্যা বের হলো লক্ষ্মীপুরের প্রান্তিকের মেঘনার কূল ঘেঁষা কমলনগরের মতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে। ১৮ই মার্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির আলোকযাত্রা দলের সদস্যদের লেখনিতে বের হয় দীর্ঘ প্রতিক্ষিত দেয়াল পত্রিকা ‘‘বেলাভূমি”। এর আগে ২০১৫ সালে এ  বিদ্যালয়ে বেলাভূমি’র প্রথম সংখ্যা প্রকাশিত হয়।

খুদে সংবাদকর্মীদের লেখনিতে পত্রিকাটি আলোকিত হয়, উঠে আসে চারপাশের নানান অজানা বিষয়গুলো। পড়ুয়ারা লিখেছে মেঘনার ভাঙ্গনে নিঃস্ব জনজীবন, পর্যটকদের আকর্ষণ মতিরহাট মেঘনাতীর, ভাঙ্গা সেতুর মৃত্যুফাঁদ, খোলা আকাশের নিচে পাঠদান, বিদ্যুৎ সংকটে কালকিনিবাসী, ছয় কিলোমিটারই বিপজ্জনক, সয়াবিনে ঝুঁকছে কৃষক। কেউ লিখছে মনোমুগ্ধকরা প্রকৃতি, উপকূলে সবুজ চাই, আবার কেউবা লিখেছে মেঘনাতীরে ওদের শিক্ষাজীবন সম্পর্কে। সব মিলিয়ে ওদের লেখায় গ্রাম-বাংলার বাস্তব চিত্রফুটে উঠে।

ওরা লিখেছে, ওরা এঁকেছে আবার ওরা নিজেরাই সম্পাদনা করে বের করলো দেয়াল পত্রিকা “বেলাভূমি”। ওরা স্বপ্ন খুঁজে লেখালেখির মাধ্যমে ওদের মধ্যে লুকিয়ে থাকা সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটার। ওরা চারপাশের বাস্তব ঘটনার প্রতিফলন ঘটায় বেলাভূমিতে, বিকশিত হয় ওদের মাঝে লুকিয়ে থাকা সুপ্ত প্রতিভার।

এ সংখ্যা অর্থাৎ মার্চ-এপ্রিলের বিষয়টি নির্ধারণ করা হয়েছে “উপকূলের প্রাকৃতিক দুর্যোগ”। যেখানে দুর্যোগের করাল আক্রমণ থেকে রক্ষায় সবুজ উপকূলের ভূমিকার কথাও খুব স্পষ্টভাবে পড়ুয়ারা তুলে ধরেছে তাদের লেখনিতে।

মার্চ-এপ্রিল এই সংখ্যার সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন, বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী মোঃ বেলাল হোসেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নুরুল আলম বেলাভূমি প্রকাশের পর শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, “একমাত্র লেখালেখির মাধ্যমেই সৃজনশীল ব্যক্তি হওয়া সম্ভব। পড়ুয়াদের পত্রিকা প্রকাশে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে।”

তিনি আশা প্রকাশ করে আরো বলেন. “আমাদের বিদ্যালয়েরপড়ুয়ারাই নিয়মিত তাদের দেয়াল পত্রিকাটির প্রকাশনা নিয়মত অব্যাহত রাখবে।”

এদিকে, মতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে বেলাভূমির ২য় সংখ্যা বের হওয়ার খবর শুনে আনন্দ চিত্তে স্থানীয় চরকালকিনি ইউপি সদস্য ও তরুণ উদ্যমী সমাজ সেবক মেহেদী হাসান লিটন নিজ অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন. “আমার এলাকার পড়ুয়ারা যেভাবে সাংবাদিকদের ভূমিকা নিয়ে চারপাশের নানান ঘটনা নিয়ে লিখে দেয়াল পত্রিকা বেলাভূমিতে প্রকাশ করছে, তা নিঃসন্দেহে আমাদের মাঝে নতুন আশার সঞ্চার করেছে। পড়ুয়ারা আমাদের জন্য বিরাট এক সম্ভাবনার।”

দেয়াল পত্রিকা বেলাভূমি প্রকাশের উদ্যোক্তা উপকূল-সন্ধানী সাংবাদিক ও উপকূল বন্ধু রফিকুল ইসলাম মন্টু। তারই পরিকল্পনায় খুদে সংবাদকর্মী জুনাইদ আল হাবিব সেই ধারা অব্যাহত রেখে সার্বিক দিক নির্দেশনায় দিয়ে বেলাভূমি’র প্রকাশনা অব্যাহত রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

//প্রতিবেদন/১৮০৩২০১৭//


এ বিভাগের আরো খবর...
২৯ এপ্রিল স্মরণ, উপকূল সুরক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার দাবি ২৯ এপ্রিল স্মরণ, উপকূল সুরক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার দাবি
ভয়াল ২৯ এপ্রিল, উপকূলে নিয়ে আসে কষ্ট-বেদনা! ভয়াল ২৯ এপ্রিল, উপকূলে নিয়ে আসে কষ্ট-বেদনা!
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, রফিকুল ইসলাম মন্টু’র ছবির গল্প উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, রফিকুল ইসলাম মন্টু’র ছবির গল্প
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী শেষ || উপকূল সুরক্ষায় নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ বিশিষ্টজনদের উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী শেষ || উপকূল সুরক্ষায় নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ বিশিষ্টজনদের
ঢাকার দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীর সমাপ্তি ঢাকার দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীর সমাপ্তি
ঢাকায় উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে রফিকুল ইসলাম মন্টু’র তোলা ছবি ঢাকায় উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে রফিকুল ইসলাম মন্টু’র তোলা ছবি
দৃক গ্যালারিতে চলছে উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আজ শুক্রবার শেষদিন দৃক গ্যালারিতে চলছে উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আজ শুক্রবার শেষদিন
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী || উপকূলে নজর বাড়ানোর দাবি দর্শনার্থীদের উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী || উপকূলে নজর বাড়ানোর দাবি দর্শনার্থীদের
রাজধানীর দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ শুরু রাজধানীর দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ শুরু
দৃক গ্যালারিতে ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ চলবে শুক্রবার পর্যন্ত দৃক গ্যালারিতে ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ চলবে শুক্রবার পর্যন্ত

কমলনগরের মতিরহাট হাইস্কুলে বেলাভূমি’র ২য় সংখ্যা প্রকাশিত
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)