বিজয় দিবসে লাল-সবুজের আড়াই হাজার পতাকা উড়িয়ে নতুন রেকর্ড কমলনগরে

- জুনাইদ আল-হাবিব

কমলনগরে উড়ছে বিজয়ের পতাকা

কমলনগর, লক্ষ্মীপুর : “স্বদেশের মান, লাখো শহীদের দান, মুক্তিযোদ্ধারাই জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান” এই স্লোগান বুকে ধারণ করে বিজয় দিবসে উপজেলা জুড়ে লাল-সবুজের আড়াই হাজার পতাকা উড়িয়ে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করলেন লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা। একইসঙ্গে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হ।

উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে শুক্রবার (১৬ই ডিসেম্বর) রাত ১২টা ১ মিনিটে ব্যতিক্রমী আয়োজনে বিজয় দিবস পালন অনুষ্ঠানের সূচনা ঘটে। হাজিরহাট উপকূল ডিগ্রি কলেজে তোপধ্বনির মাধ্যমে শহীদ মিনারে মহান বিজয় দিবসে একাত্তরে জীবন উৎসর্গকারী সকল বীর শহীদদের প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

এ উপলক্ষ্যে কমলনগর উপজেলা কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে আলোচনা সভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, কুচকাওয়াজ, কবিতা ও রচনা প্রতিযোগীতার আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন। সকাল থেকে কমলনগরের আকাশে উড়তে দেখা যায় হাজার হাজার জাতীয় পতাকা, যা বিশ্বের বুকে কমলনগরকে পরিচিত করার গৌরবময় দিন।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, লক্ষ্মীপুর-৪ (কমলনগর-রামগতি) আসনের এমপি আবদুল্লাহ আল মামুন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লার সভাপতিত্বে সভায় অন্যানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজনীতিবিদ, এডভোকেট আনোয়ারুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মাষ্টার মফিজ উল্লাহ, এডভোকটে নুরুল আমিন রাজু, চর লরেন্স ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম নুরুল আমিন মাষ্টার, হাজির হাট ইউপি চেয়ারম্যান, মোঃ নিজাম উদ্দিন প্রমুখ।

অনূষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দ সাংবাদিক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদের সন্তান শিশু যিয়ানের মুখে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুনেন এবং তাকে আদর করেন। এসময় বক্তব্যে, এমপি আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, “মুক্তিযোদ্ধাদের অধিকার রক্ষায় আমরা নিজ প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছি. এক্ষেত্রে সকলের সহযোগীতায় তাদের পথচলায় আর কোন বাঁধা আসবেনা”।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে ইউএনও মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান রহমান মোল্লা বলেন, “কোন মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে আমার মনে হয় এই স্বাধীন ভূখন্ডের এক কোণ ধ্বসে পড়ছে, মুক্তিযোদ্ধারাই জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, মুক্তিযোদ্ধারাই জাতির প্রাণ”।

বিজয় দিবসে কমলনগরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

আগামি প্রজন্মকে স্বদেশপ্রেমী করে গড়ে তোলতে তিনি নিজ অভিমত ব্যাক্ত করে আরো বলেন, “আগামি বছরের শুরু থেকে আমি উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধাদের দিয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের মুক্তিযোদ্ধাদের গল্প শুনাবো, এতে করে নতুন প্রজন্ম বিপদগামী হবেনা বলে আমার আত্মবিশ্বাস”।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তৌহিদুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপকূল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল মোতালেব, হাজিরহাট হামেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা যায়েদ হোসাইন আল ফারুকী, তোরাবগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান ফয়সাল আহমেদ রতন, চরমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইউছুপ আলী, মিডিয়াকর্মীগণসহ উপজেলার বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষাথীরা।

শেষ পর্যায়ে এক বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রসঙ্গত, মহান বিজয় দিবসকে অন্যরকম আঙ্গিকে পালনের জন্য উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানসহ উপজেলা জুড়ে আড়াই হাজার জাতীয় পতাকা উড়ানোর প্রস্তুতির জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে আসছেন।

//প্রতিবেদন/উপকূল বাংলাদেশ/১৬১২২০১৬//


এ বিভাগের আরো খবর...
তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু
জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘সবুজ উপকূল’ জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘সবুজ উপকূল’
সবুজ উপকূল, সাগরপাড়ে আলোর হাতছানি সবুজ উপকূল, সাগরপাড়ে আলোর হাতছানি
‘সবুজ উপকূল’ পড়ুয়াদের সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটাচ্ছে ‘সবুজ উপকূল’ পড়ুয়াদের সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটাচ্ছে
‘সবুজ উপকূল’-এর পথে হাঁটছে অসংখ্য সবুজযোদ্ধা ‘সবুজ উপকূল’-এর পথে হাঁটছে অসংখ্য সবুজযোদ্ধা
উপকূল বাঁচিয়ে রাখতে ‘সবুজ উপকূল’ মাইলফলক উপকূল বাঁচিয়ে রাখতে ‘সবুজ উপকূল’ মাইলফলক
উপকূলের তরুণদের প্রকাশের আলোয় আনছে ‘সবুজ উপকূল’ উপকূলের তরুণদের প্রকাশের আলোয় আনছে ‘সবুজ উপকূল’
সবুজ উপকূল, জেগে উঠছে আগামী প্রজন্ম সবুজ উপকূল, জেগে উঠছে আগামী প্রজন্ম
লক্ষ্মীপুরে সকল শিক্ষাঙ্গনে লাইব্রেরি গড়ে তোলার দাবি লক্ষ্মীপুরে সকল শিক্ষাঙ্গনে লাইব্রেরি গড়ে তোলার দাবি
আসুন, ১২ নভেম্বর ‘উপকূল দিবস’ পালন করি আসুন, ১২ নভেম্বর ‘উপকূল দিবস’ পালন করি

বিজয় দিবসে লাল-সবুজের আড়াই হাজার পতাকা উড়িয়ে নতুন রেকর্ড কমলনগরে
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)