১০ বছরের জন্য হচ্ছে দ্বিতীয় টাইগার অ্যাকশন প্লান

১০ বছরের জন্য হচ্ছে দ্বিতীয় টাইগার অ্যাকশন প্লান

- প্রবীর বিশ্বাস

সুন্দরবনে বাঘ

খুলনা : বাঘের জন্য হুমকি নিরসন ও সুন্দরবনের জীববৈচিত্র সংরক্ষণে গুরুত্ব দিয়ে ১০ বছরের জন্য দ্বিতীয় টাইগার অ্যাকশন প্লান প্রণয়নের কাজ করেছে বন বিভাগ। ২০১৮ সাল থেকে কার্যকর হওয়া এই প্লানে বাঘের হুমকিগুলো চিহ্নিত করার পাশাপাশি থাকবে মোকাবেলার উপায়ও। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাঘের সংখ্যা যাতে কোনোভাবেই কমে না যায়, সে বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হবে অ্যাকশন প্লানে।

২’শ বছর আগে সুন্দরবেনের আয়তন ছিল ১৬ হাজার ৭’শ বর্গ কিমি। বর্তমানে তা সঙ্কুচিত হয়ে দাড়িয়েছে ১০ হাজার বর্গ কিলোমিটারে। বাংলাদেশ অংশে সুন্দরবনের পরিমাণ ৬ হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার। এছাড়া ১৯৭১ সাল থেকে এ পর্যন্ত সাতবার বাঘ শুমারী হয়েছে। যার মধ্যে ১৯৭১ সালে বাঘের সংখ্যা ছিল ৩২০টি, ১৯৭৫ সালে ৩৫০টি, ১৯৮০ সালে ৪৩০ থেকে ৪৫০টি, ১৯৯২ সালে ৩৫৯টি, ১৯৯৩ সালে ৩৬২টি, ২০০৪ সালে ৪৪০টি এবং ২০১৫ সালে সর্বশেষ বাঘ শুমারিতে সুন্দরবনের বাঘের সংখ্যা পাওয়া যায় মাত্র ১০৬টি। আর এটিই মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাড়ায় সকলের।

এর আগে সুন্দরনের বাঘ সুরক্ষার জন্য ২০০৯ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত প্রথম টাইগার অ্যাকশন প্লান প্রনয়ণ করা হয়। এতে উঠে আসে বেঙ্গল টাইগারের জন্য নানা হুমকির বিষয়। সে জন্য দ্বিতীয় টাইগার অ্যাকশন প্লান প্রণয়নের কাজ করেছে বন বিভাগ। ইতিধ্যেই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে যে সকল গুরুত্বপূর্ণ সুপারিশমালা এসেছে সেগুলি মধ্যে আছে বাঘ ও সুন্দবনের প্রাণী পাচার বন্ধে বন বিভাগসহ অন্যান্য দপ্তরের সমন্বয়ে গোয়েন্দা ইউনিট তৈরী করা। বন ও জলপথে স্মার্ট পেট্রোলিং সিস্টেমকে জোরদার করা। এক্ষেত্রে আইন প্রয়োগকারী  সংস্থার সাথে একটি সমন্বয় সেল তৈরী করা। বন কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বন্য আইন সম্পর্কে প্রশিক্ষণ প্রদান যাতে তারা বনের শত্রæদের বিরুদ্ধে সঠিক আইন প্রয়োগে সক্ষম হয়। বনে কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারীদের ঝুঁকি ও চিকিৎসা ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা করা।

প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সকলের বেতন কাঠামোও বৃদ্ধির সুপারিশ করা হয়েছে। সুন্দরবনে ভাসমান টহল ক্যাম্পস্থাপন করা যাতে করে বনের মধ্যে প্রবেশকারী সকল নৌযানে নজরদারি করা সম্ভব হয়। সুন্দরবনের নিকটে বন্যপ্রাণী রেসকিউ সেন্টার ও গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন। বনজীবীদের বিকল্প কর্মসংস্থান তৈরীতে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ। আর্ন্তজাতিক সংস্থা যারা বণ্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও পাচার প্রতিরোধে কাজ করছেন তাদের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে বাঘ ও সুন্দরবনের জীববৈচিত্র সংরক্ষণে সহযোগিতা নেয়া। একটি নিদৃষ্ট সময়ের জন্য সুন্দরবন থেকে সকল প্রকার সম্পদ আহরণ বন্ধ করা। প্রাথমিক পর্যায় থেকে উচ্চ শ্রেণীর পাঠ্য পুস্তককে বাঘ ও সুন্দরবন সংরক্ষণের বিষয় অর্ন্তভ‚ক্ত করা।

সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগ বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, মোঃ সাইদ আলী জানান, বিশ্ব ব্যাংক এই পরিকল্পনা প্রণয়নে এই মূহুর্তে আর্থিক সহযোগিতা করছে। প্রকল্পের নাম টাইগার এ্যাকশন প্লান হলেও বাঘের বসবাসের পরিবেশ ও খাদ্য সকল কিছুকেই প্রাধান্য থাকছে এই পরিকল্পনায়। এছাড়া বনের জন্য অনান্য হুমকিগুলোও চিহ্নিত করা হচ্ছে। কারণ বন না থাকলে কোন ভাবেই বাঘ সংরক্ষণ করা সম্ভব নয়। বনের উদ্ভিদ ও প্রাণীকুল সকল কিছু ঠিক না থাকলে খাদ্য শৃঙ্খলের শীর্ষে থাকা বাঘ তার বেঁচে থাকার জন্য সুষ্ঠ পরিবেশ পায়না। ফলে এবারের পরিকল্পনায় বনের সার্বিক পরিবেশ ঠিক রাখার বিষয় বিবেচনায় আনা হচ্ছে। এই পরিকল্পনার মাধ্যমে ২০২২ সালের মধ্যে সুন্দরবনে যে পরিমান বাঘের আবাসন সংকুলান হয়, বাঘের সংখ্যা সেই পরিমাণে উন্নিত করার চেষ্টা চলবে বলে জানা তিনি।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রাকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, মদিনুল আহসান জানান, নতুন পরিকল্পনায় শিকারীদের দৌরাত্ম্য, লোকালয়ে আসা বাঘ পিটিয়ে হত্যা ও বনের মধ্য দিয়ে জাহাজ চলাচলসহ দূষণ নিরসনের বিষয় গুরুত্ব পাচ্ছে। ২০১৮ সাল থেকে এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে।

এ বিষেয়ে সুন্দরবন অ্যাকাডেমির পরিচালক ফারুক আহমেদ বলেন, বন বিভাগের সক্ষমতা অভাবের জন্য পূর্বে সুন্দরবনে নেয়া কোন পরিকল্পনাই সফল হয়নি। বর্তমান অবস্থাতে টাইগার এ্যাকশন প্লানের মত বড় কর্মযজ্ঞ সম্পাদনের সক্ষমতা বন বিভাগের নেই। ফলে এ পরিকল্পনাও মুখ থুবড়ে পরতে পারে। যদি সুন্দরবন ও বাঘকে সত্যিই রক্ষা করতে হয় তাহলে বন বিভাগসহ অন্যান্য সংস্থার সক্ষমতা বাড়াতে হবে, দিতে হবে পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ।

//প্রতিবেদন/০৯১২২০১৬//


এ বিভাগের আরো খবর...
২৯ এপ্রিল স্মরণ, উপকূল সুরক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার দাবি ২৯ এপ্রিল স্মরণ, উপকূল সুরক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংস্কার দাবি
ভয়াল ২৯ এপ্রিল, উপকূলে নিয়ে আসে কষ্ট-বেদনা! ভয়াল ২৯ এপ্রিল, উপকূলে নিয়ে আসে কষ্ট-বেদনা!
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, রফিকুল ইসলাম মন্টু’র ছবির গল্প উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, রফিকুল ইসলাম মন্টু’র ছবির গল্প
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী শেষ || উপকূল সুরক্ষায় নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ বিশিষ্টজনদের উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী শেষ || উপকূল সুরক্ষায় নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ বিশিষ্টজনদের
ঢাকার দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীর সমাপ্তি ঢাকার দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীর সমাপ্তি
ঢাকায় উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে রফিকুল ইসলাম মন্টু’র তোলা ছবি ঢাকায় উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে রফিকুল ইসলাম মন্টু’র তোলা ছবি
দৃক গ্যালারিতে চলছে উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আজ শুক্রবার শেষদিন দৃক গ্যালারিতে চলছে উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আজ শুক্রবার শেষদিন
উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী || উপকূলে নজর বাড়ানোর দাবি দর্শনার্থীদের উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী || উপকূলে নজর বাড়ানোর দাবি দর্শনার্থীদের
রাজধানীর দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ শুরু রাজধানীর দৃক গ্যালারিতে ৩ দিনব্যাপী ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ শুরু
দৃক গ্যালারিতে ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ চলবে শুক্রবার পর্যন্ত দৃক গ্যালারিতে ‘উপকূল আলোকচিত্র প্রদর্শনী’ চলবে শুক্রবার পর্যন্ত

১০ বছরের জন্য হচ্ছে দ্বিতীয় টাইগার অ্যাকশন প্লান
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)