লক্ষ্মীপুরের বিপুল সম্ভাবনা কী মেঘনায় হারাবে?

- জুনাইদ আল-হাবিব

রাক্ষুসী মেঘনা

কমলনগর, লক্ষ্মীপুর : বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুর। জেলাটির রয়েছে অন্যরকম সম্ভাবনা, এমনকি এ জেলার কৃতি সন্তানেরা অবদান রাখছেন রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ কাজে। জেলার অন্যতম সম্ভাবনা হচ্ছে মেঘনার ইলিশ, ধান-সয়াবিন আর নারিকেল -সুপারি।

আর যেই ইলিশকে বর্তমানে বাংলাদেশের সম্পদ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এসব সম্ভাবনা শুধু জেলা নয় দেশের চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানি হচ্ছে বিদেশে ! কিন্তু আমাদের এই সব সম্ভানাকে টিকিয়ে রাখতে কতটুকু ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে ? এদেশের সয়াবিনের রাজধানী লক্ষ্মীপুরের কমলনগর, দেশের ইলিশের অধিক চাহিদা মেটানো হয় রামগতি- কমলনগরের মেঘনা থেকে, নারিকেল ও সুপারির চাহিদা মিটানো হয় পুরো জেলা থেকে।

রাষ্ট্রের উন্নয়নে যখন এসব সম্ভাবনা ব্যাপক অবদান রেখে আসছে তখনই জেলার দক্ষিণাঞ্চল থেকে হানা দিয়েছে রাক্ষুসে নামক এক ভয়ংকর মেঘনা ! মেঘনার এই অনিয়নিয়ন্ত্রিত হানায় প্রতিদিনই অসহায় মানবের ভিটে- মাটি গিলে খাওয়ার সাথে হারিয়ে যাচ্ছে জেলার গুরুত্বপূর্ণ দুইটি উপজেলা রামগতি ও কমলনগর !

যেখানে মেঘনার হানার সাথে সাথে ধ্বংস হচ্ছে ধান-সয়াবিনের ক্ষেত, বসত-বাড়ি বিলীনের সাথে সাথে বিলুপ্ত হয়ে চলছে সম্ভাবনার নারিকেল ও সুপারি। মানুষের তিল তিল করে গড়ে উঠা সম্পদ, বহু সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আর ব্যাক্তিগত ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বর্তমানে মেঘনার বুকে চিরতরে বিলীন। বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মেঘনা হিসেবে নিবারণ করায় জেলার নিমাঞ্চলের শিক্ষা ব্যবস্থা মোটেও উন্নতির স্বর্ণ শিখরে পৌঁছতে পারছেনা। বিশেষ করে বহু ঐতিহ্যবাহী মসজিদ মেঘনায় বিলীন হওয়াতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা কাঁন্নায় ভেঙ্গে পড়েন, বিঘ্নিত হচ্ছে ইবাদত- বন্দেগী।

মেঘনার এই অব্যাহত ভাঙ্গনের কারণে ব্যাহত হচ্ছে এই উপজেলার নানান উন্নয়ন কর্মকান্ড। এই জেলার বহু সড়ক বর্তমানে বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে, বহু রাস্তা এখনোও পাকাহীন ও অর্ধপাকা হওয়ায় ভোগান্তি পিছু হটছেনা জেলাবাসীর। নির্বিঘ্নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ুয়ারা পৌঁছতে নির্দিষ্ট সময়ে। একটাই বাঁধা বিপন্নতার আর অনগ্রসরতা। মানুষের মনে আজও প্রশ্ন, কবে থামবে রাক্ষুসে মেঘনার ভাঙ্গন ?

মেঘনার অব্যাহত করাল হানা সাক্ষাতকালে কমলনগর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা বলেন, “মেঘনার ভাঙ্গনে দিন দিন কমলনগর ক্রমান্বয়ে ছোট হয়ে আসছে। তাই সরকারের কাছে দাবি মেঘনার ভাঙ্গন থেকে কমলনগর রক্ষায় দীর্ঘ ১৫ কিলোমিটার জুড়ে বাঁধ নির্মাণের জন্য বাজেট বৃদ্ধি করে প্রয়োজনীয় প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হোক”।

কবে ফিরে পাবে মানুষ মানুষের অতীত অস্তিত্ব ? কবে অসহায় মানুষের চেহারায় ফুটবে আলোর হাসি? আর এই রকম প্রশ্ন এখন জনমনে ।

//প্রতিবেদন/০৩১২২০১৬//


এ বিভাগের আরো খবর...
পর্যটকের ভিড় বাড়ছে লক্ষ্মীপুরের মতিরহাট মেঘনাতীরে পর্যটকের ভিড় বাড়ছে লক্ষ্মীপুরের মতিরহাট মেঘনাতীরে
আলোকযাত্রা দলের উদ্যোগে হাসি ফুটলো কমলনগরের মেঘনাপাড়ের শিশুদের মুখে আলোকযাত্রা দলের উদ্যোগে হাসি ফুটলো কমলনগরের মেঘনাপাড়ের শিশুদের মুখে
‘সবুজ উপকূল’ বদলে দিচ্ছে উপকূলের পরিবেশ ‘সবুজ উপকূল’ বদলে দিচ্ছে উপকূলের পরিবেশ
পাইকগাছায় আলোকযাত্রা দলের উদ্যোগে বিশ্ব বাবা দিবস পালিত পাইকগাছায় আলোকযাত্রা দলের উদ্যোগে বিশ্ব বাবা দিবস পালিত
অভিনয়ের মাঝেই বেঁচে থাকতে চাই | আজম খান অভিনয়ের মাঝেই বেঁচে থাকতে চাই | আজম খান
ঈদের ৪ টেলিফিল্ম, ৩ নাটকে আজম খান ঈদের ৪ টেলিফিল্ম, ৩ নাটকে আজম খান
ওরা সুযোগ চায়, আলোকিত মানুষ হতে চায়! ওরা সুযোগ চায়, আলোকিত মানুষ হতে চায়!
মিজানের বাঁচার আকুতি! মিজানের বাঁচার আকুতি!
হাতিয়া ভাঙ্গন | তামজিদ উদ্দীন হাতিয়া ভাঙ্গন | তামজিদ উদ্দীন
উপকূল সুরক্ষায় ১২ জরুরি বিষয়ে নজর দিন উপকূল সুরক্ষায় ১২ জরুরি বিষয়ে নজর দিন

লক্ষ্মীপুরের বিপুল সম্ভাবনা কী মেঘনায় হারাবে?
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)