এখনও বাঁধের বাইরে ৪ হাজার পরিবার

উপকূলে বাঁধের বাইরে বিপন্ন বসতিকলাপাড়া (পটুয়াখালী) : রবিবার (১৫ নভেম্বর) সিডর তান্ডবের আট বছর পূর্ন হল। প্রকৃতির বুলডোজার সুপার সাইক্লোনখ্যাত ঘূর্ণিঝড়ের ভয়াল থান্ডবের কথা কলাপাড়ার মানুষ আজও ভুলতে পারেনি। আট বছর পরও কলাপাড়ায় চার সহস্রাধিক পরিবার বেড়িবাঁধের বাইরে ঝুপড়িতে চরম ঝুঁকিতে বসবাস করছে। এছাড়া যাদেরকে পুনর্বাসিত করা হয়েছিল তারও দুই তৃতীয়াংশ ঘর বাস অযোগ্য হয়ে গেছে। নতুন করে বেড়েছে গৃহহারা পরিবার।

২০০৭ সালে সিডরের ভয়াল তান্ডবে কলাপাড়ায় ৯৪ জন মানুষের প্রানহানি ঘটে। আজও নিখোঁজের রয়েছে সাত জেলে ও এক শিশু। আহত হয়েছে ১৬৭৮জন। এর মধ্যে ৯৬ জন প্রতিবন্ধী হয়ে গেছে। বিধবা হয়েছে ১২ গৃহবধু। এতিম হয়েছে ২০ শিশু। সম্পুর্ণভাবে ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে ১২হাজার নয় শ’ পরিবার। আংশিক বিধ্বস্ত হয় ১৪ হাজার নয় শ’ ২৫ পরিবার। তিন হাজার দুই শ’ ২৫জেলে পরিবার ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

প্রকৃতির ওই কালো থাবায় শতকরা ৯০ ভাগ পরিবার ক্ষতির শিকার হয়। এর মধ্যে ৫৪৭৩ টি পরিবারকে ঘর ণির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। ৫৪০ পরিবারের মধ্যে দেয়ার জন্য ব্যারাক হাউস নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে পাঁচ বছর আগে। কিন্তু এসব ব্যারাকের অন্তত ৩০০ কক্ষে লোকজন থাকছে না। ব্যারাক হাউসের চাল বেড়া পর্যন্ত চুরি হয়ে গেছে। সম্পুর্ণ বিধ্বস্ত আরও চার সহস্রাধিক পরিবার আজ পর্যন্ত ঘর পায়নি। আদৌ আর কখনও পাবে কিনা তা খোদ সরকারের মহল থেকে নিশ্চিত করতে পারেনি। বসতঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হওয়া ১২হাজার পাঁচ শ’ ১৬ পরিবারের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে ক্ষতিপুরণ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া তিন হাজার, আড়াই হাজার, দুই হাজার এবং এক হাজার টাকা করে আরও ছয় হাজার সাত শ’ পরিবারকে গৃহ নির্মাণে সহায়তা দেয়া হয়েছে । গৃহ ণির্মাণ সামগ্রী দিয়ে সহায়তা দেয়া হয়েছে আরও অন্তত সাত হাজার পরিবারকে।

খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে অধিকাংশ পরিবারকে। এখবর সরকারের বিভিন্ন সুত্রের । তারপরও সম্পূর্ণ এবং আংশিক বিধ্বস্ত চার সহস্রাধিক পরিবার আজও মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এরা বেড়িবাঁধের বাইওে ঝুপড়ি তুলে সন্তান পরিজন নিয়ে খুব কষ্টে দিনাতিপাত করছে। এছাড়া সিডরে পেশা হারানো শতাধিক ক্ষুদে ব্যবসায়ী এখনও পেশায় ফিরে যেতে পারেনি।

সরকারি ভাবে  ঝুঁকি হ্্রাস কর্মসূচির মাধ্যমে ৫০০ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে পাঁচ-দশ হাজার টাকা করে সুদমুক্ত লোন দেয়া হয়েছে, কিন্তু প্রকৃত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর ভাগ্যে তা জোটেনি ।

//মেজবাহউদ্দিন মাননু/উপকূল বাংলাদেশ/কলাপাড়া-পটুয়াখালী/১৬১১২০১৫//


এ বিভাগের আরো খবর...
বরগুনায় বাণিজ্যিক সূর্যমুখী চাষে লাভবান কৃষক বরগুনায় বাণিজ্যিক সূর্যমুখী চাষে লাভবান কৃষক
পাইকগাছার পড়ুয়ারাদের প্রকৃতিপাঠ, সবুজে গড়ছে জীবন পাইকগাছার পড়ুয়ারাদের প্রকৃতিপাঠ, সবুজে গড়ছে জীবন
উপকূলের উদীয়মান সংবাদকর্মী ছোটন সাহা’র ছুটে চলার গল্প উপকূলের উদীয়মান সংবাদকর্মী ছোটন সাহা’র ছুটে চলার গল্প
কমলনগরে পড়ুয়াদের সবুজ জগত, অনুপ্রেরণায় ‘সবুজ উপকূল’ কমলনগরে পড়ুয়াদের সবুজ জগত, অনুপ্রেরণায় ‘সবুজ উপকূল’
শ্যামনগরে পড়ুয়ারা গড়ে তুলেছে পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলন শ্যামনগরে পড়ুয়ারা গড়ে তুলেছে পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলন
জনতার প্রিয় মানুষ এমপি মুকুল জনতার প্রিয় মানুষ এমপি মুকুল
একুশে বইমেলায় সাংবাদিক ছোটন সাহার ‘মেঘের আঁধারে’ একুশে বইমেলায় সাংবাদিক ছোটন সাহার ‘মেঘের আঁধারে’
‘সমৃদ্ধশালী মডেল ঢালচর গড়তে চাই’ : আবদুস সালাম হাওলাদার ‘সমৃদ্ধশালী মডেল ঢালচর গড়তে চাই’ : আবদুস সালাম হাওলাদার
কুয়াকাটায় জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ সমাপ্ত কুয়াকাটায় জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ সমাপ্ত
তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু তৃতীয়বারের মত ডিআরইউ অ্যাওয়ার্ড পেলেন রফিকুল ইসলাম মন্টু

এখনও বাঁধের বাইরে ৪ হাজার পরিবার
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)